Score

লিটনের ঝড়ো ডাবল সেঞ্চুরিতে লড়াইয়ে রংপুর

জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) টায়ার-১ এর ম্যাচে তৃতীয় দিন শেষে রাজশাহী বিভাগের বিপক্ষে ১১৯ রানে পিছিয়ে আছে রংপুর  বিভাগ। ঝড়ো ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন লিটন কুমার দাস। দিনের খেলা শেষ হবার ২ বল আগে আউট হোন লিটন। এর আগে ১৪২ বলে ৩২ আর ৪ ছক্কায় ২০৩ রান করেন লিটন।

শতকের পর লিটনের উৎযাপন 


প্রথম ইনিংসে রাজশাহী বিভাগের থেকে ৪৩৮ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই আক্রমনাত্মক ছিলেন লিটন কুমার দাস। ২১.৩ ওভারে উদ্ভোধনী জুটিতে আসে ৯৮ রান। শফিকুল ইসলামের বলে ৬৯ বলে ৩৫ রানে ওপেনার জাহিদ বিদায় নেবার পর লিটনের আক্রমনের ধার আরও বেড়ে যায়। ৬০ বলে ৬২ রান নিয়ে ব্যাট করতে থাকা লিটন। পরবর্তি ২১ বলে করেছেন ৪১ রান। তাইজুল ইসলামের টানা দুই বলে দুই চার মেরে শতক পূরণ করেন লিটন। 
প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এটা লিটনের ১৩তম সেঞ্চুরি।

ঝড়ো শতক হাঁকানোর পর থেমে থাকেননি লিটন। চালিয়ে যান ব্যাটিং তান্ডব। দ্বিতীয় উইকেটে মাহমুদুল হাসানের সাথে ১১৯ রানের জুটি গড়ে তোলেন। বলের সাথে পাল্লা দিয়ে রান করে যাচ্ছিলেন মাহমুদুলও। দিনের শেষ ওভারে তাইজুল ইসলামের প্রথম বলে ছক্কা,  এরপরের বলে চার মেরে ডাবল সেঞ্চুরি পূরণ করেন লিটন।  সেঞ্চুরি থেকে ডাবল সেঞ্চুরিতে পৌছাতে খেলেছেন মাত্র ৫৯ বল। ২২০ মিনিট ক্রিজে থেকে করেছেন ২০৩ রান।

দিনের খেলা শেষ হবার দুই বল আগে সাব্বির রহমানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। উল্লেখ্য, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে লিটনের সর্বোচ্চ স্কোর ২৭৪। এদিকে লিটন আউট হলেও ৮১  বলে ৭২ রানে অপরাজিত আছেন মাহমুদুল হাসান।  তৃতীয় দিনের খেলা শেষে রংপুর বিভাগের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৩১৯ রান, রাজশাহীর প্রথম ইনিংস থেকে এখনও পিছিয়ে ১১৯ রানে।

Also Read - এনসিএলে লিটনের ঝড়ো শতক

এর পূর্বে ২ উইকেটে ৪১৯ রানে নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে রাজশাহী বিভাগ। আগের দিন ২৬ রান করা ফরহাদ হোসেন তুলে নেন অর্ধশতক। এরপর ৬২ রানে সাজেদুল ইসলামের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরেন। ফরহাদের আউটের পর ক্রিজে আসেন রাজশাহীর অধিনায়ক জহুরুল ইসলাম অমি। আগের ম্যাচে বড় শতক হাঁকানো অমি এই ম্যাচেও দারুণ খেলেছেন। ৫০ বলে ৬ চারে ৫৫ রান করেছেন।

এই দুই ব্যাটসম্যানের সাথে বড় জুটি গড়েছেন জুনায়েদ সিদ্দিকী। প্রথমে ফরহাদ হোসেনের সাথে ১০৭ ও এরপর জহুরুল ইসলামের সাথে ৯০ রানের জুটি গড়ে তোলেন জুনায়েদ। দলীয় ৫৬১ রানে অমির বিদায়ে ক্রিজে আসেন সাব্বির রহমান। তবে জুনায়েদ সিদ্দিকীর শতকের জন্য অপেক্ষা করছিল রাজশাহী।  ১৯৯ বলে ৬ চারে সেঞ্চুরি পূরণ করেন এই বামহাতি ব্যাটসম্যান।  এরপর ৪ উইকেটে ৫৮৯ রানে ইনিংস ঘোষণা করে রাজশাহী বিভাগ। ৩৩ বলে ১ ছয়ে ১৫ রানে অপরাজিত ছিলেন সাব্বির।

জুনায়েদ সিদ্দিকীর পাশাপাশি সেঞ্চুরি করেছেন নাজমুল হাসান শান্ত ও মিজানুর রহমান। ৩১৩ বলে ২৩ চারে ১৭৩ রান করেন শান্ত। আর ২১৬ বলে ২২ চারে ১৬৫ রান করেন মিজানুর রহমান।

উল্লেখ্য, প্রথম ইনিংসে মাত্র ১৫১ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল রংপুর বিভাগ। সর্বোচ্চ ৬০ রান করেছিলেন নাইম ইসলাম।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
(তৃতীয় দিনশেষে)
রংপুর বিভাগ (১ম ইনিংস)- ১৫১/১০ (৫৯.৪ ওভার)
নাইম ইসলাম ৬০; মহোর ৩/৩৭, রেজা ৩/৩৯

রাজশাহী বিভাগ(১ম ইনিংস)- ৫৮৯/৪ (১৫০ ওভার)
নাজমুল হোসেন ১৭৩, মিজানুর রহমান ১৬৫, জুনায়েদ সিদ্দিকী ১০০*

রংপুর বিভাগ (২য় ইনিংস)- ৩১৯/২ (৪৯ ওভার)
লিটন ২০৩, মাহমুদুল ৭২*

রংপুর বিভাগ ১১৯ রানে পিছিয়ে। 

 

[আরও পড়ুনঃ মিরাজ নয়, মাশরাফিকে ওপেনিংয়ে নামতে বলেছিলেন পাপন!]

Related Articles

ক্যারিয়ারের শেষ ইনিংসেও রঙিন রাজিন

জাতীয় লিগের শিরোপা জিতল রাজশাহী বিভাগ

ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচেও রাজিনের ব্যাটে রান

বিদায়ের কথা জানাতে গিয়ে অশ্রুসিক্ত রাজিন

আশা জাগিয়েও পারলেন না আশরাফুল