Scores

বর্ষসেরা ওয়ানডে একাদশ ২০১৮

২০১ ৯ সালকে স্বাগতম জানানোর প্রহর গুণছে সবাই। কিছুদিন পরেই বিদায় দেওয়া হবে ২০১৮ সালকে। গত হতে যাওয়া ২০১৮ সালের ওয়ানডেতে যারা নৈপুণ্য দেখিয়েছেন তাদের মধ্যে ১১ জন নিয়ে বিডিক্রিকটাইম সাজিয়েছে বর্ষসেরা ওয়ানডে একাদশ। একাদশে বাংলাদেশের ক্রিকেটার চারজন, ভারতের ক্রিকেটার তিনজনের পাশাপাশি আফগানিস্তান, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার রয়েছে একজন করে।

বর্ষসেরা ওয়ানডে একাদশ

তামিম ইকবাল (বাংলাদেশ)
ম্যাচ :  ১২, রান : ৬৮৪, গড় :  ৮৫.৫০।

Also Read - মোহাম্মদ হাফিজকে দলে নিল রাজশাহী কিংস


২০১৮ সালে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তামিম ইকবাল। এ বাঁহাতি ওপেনারের গড় ৮৫.৫০। ২০১৮ সালে ব্যাট হাতে দুইটি শতক ও ছয়টি অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন তামিম। সেরা ইনিংস অপরাজিত ১৩০ রান।

রোহিত শর্মা (ভারত) 
ম্যাচ : ১৯, রান : ১০৩০, গড় :  ৭৩.৫৭।

ভারতের ওপেনার রোহিত শর্মা ২০১৮ সালে ওয়ানডেতে এক হাজারের বেশি রান করা তিন ব্যাটসম্যানের একজন। ২০১৮ সালে পাঁচটি শতক ও তিনটি অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন রোহিত। স্ট্রাইক রেট ১০০.০৯। ২০১৮ সালে সর্বোচ্চ ছক্কা মারার রেকর্ডটাও তার।

জনি বেয়ারস্টো (ইংল্যান্ড)

ম্যাচ : ২২, রান : ১০২৫, গড় : ৪৬.৫৯।

ইংলিশ ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টো ২০১৮ সালে করেছেন ১০২৫ রান। মারকুটে এ ব্যাটসম্যানের স্তড়াইক রেট ছিল ১১৮.২২। বিদায়ী বছরে চারটি শতক ও দুইটি অর্ধশতক রয়েছে জনির।

বিরাট কোহলি (ভারত) (অধিনায়ক)
ম্যাচ : ১৪, রান : ১২০২, গড় : ১৩৩.৫৫। 

২০১৮ সালের ওয়ানডে ফরম্যাটের সেরা ব্যাটসম্যান যেন ছিলেন বিরাট কোহলি। ২০১৮ সালে সবচেয়ে বেশি রান করা কোহলি হাজার ছাড়ানো রান করা তিনজনের মধ্যে খেলেছেন সবচেয়ে কম ম্যাচ। ১৪ ইনিংসের পাঁচটিতে ছিলেন নট আউট। গড়টাও তাই আকাশচুম্বী। স্ট্রাইক রেট ছিল ১০২.৫৫।

রস টেলর (নিউজিল্যান্ড)
ম্যাচ : ১১, রান : ৬৩৯, গড় : ৯১.২৮।

২০১৮ সালে মাত্র ১১ টি ওয়ানডে খেলেছেন কিউই ব্যাটসম্যান রস টেলর। তবে বছরজুড়ে রস টেলর ছিলেন ধারাবাহিক। ৯১.২৮ গড়ে ৬৩৯ রান করা রস টেলরের রয়েছে দুইটি শতক ও চারটি অর্ধশতক। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে রয়েছে তার অপরাজিত ১৮১ রানের ইনিংস।

মুশফিকুর রহিম (বাংলাদেশ) (উইকেটরক্ষক)
ম্যাচ : ১৯, রান : ৭৭০, গড় : ৫৫.০০।
ক্যাচ : ২১ টি, স্টাম্পিং : ২।

২০১৮ সালে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক মুশফিকুর রহিম। ১৯ ম্যাচে ৭৭০ রান করা মুশফিকের এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৪৪ রানের মহাকাব্যিক ইনিংসটি ২০১৮ সালে তার একমাত্র শতক। অর্ধশতক আছে পাঁচটি। উইকেটের পেছনে ক্যাচ ধরেছেন ২১ টি ও স্টাম্পিং ২ টি।

সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ)
ম্যাচ : ১৫, রান : ৪৯৭, গড় : ৩৮.২৩।
উইকেট : ২১, ইকোনমি : ৪.৪৮।

অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ব্যাটিং ও বোলিং – দুই বিভাগেই ছিলেন সফল। ব্যাটিংয়ে পাঁচটি অর্ধশতক রয়েছে এ বছর। তিন রানের জন্য বঞ্চিত হয়েছেন শতক থেকে। ৪৯৭ রানের পাশাপাশি শিকার করেছেন ২১ টি উইকেট। ব্যাটিঙ্গে গড় ৩৮.২৩ ও বোলিংয়ে গড় ২৬.৮০। 

রশিদ খান (আফগানিস্তান)
ম্যাচ : ২০, উইকেট : ৪৮, গড় : ১৪.৪৫।

আফগানিস্তানের লেগ স্পিনার রশিদ খান ২০১৮ সালের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী। ২০ ম্যাচে ৪৮ উইকেট নেওয়া রশিদ খানের ঘূর্ণির নৈপুণ্যে বিশ্বকাপের টিকিট পায় আফগানিস্তান। তার বোলিং গড় ১৪.৪৫ ও ইকোনমি ৩.৮৯।

মুস্তাফিজুর রহমান (বাংলাদেশ)
ম্যাচ : ১৮, উইকেট : ২৯, গড় : ২১.৭২।

২০১৮ সালে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর ২১.৭২ গড়ে শিকার করেছেন ২৯ উইকেট। ছিলেন মিতব্যয়ীও। ইকোনমি ৪.২০।

লুঙ্গিসানি এনজিডি (দক্ষিণ আফ্রিকা)
ম্যাচ : ১৩, উইকেট : ২৬, গড় : ২৩.০৩।

২০১৮ সালেই অভিষেক হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার ২২ বছর বয়সী ডানহাতি পেসার লুঙ্গিসানি এনজিডির। প্রথম বছরেই করেছেন বাজিমাত। দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী এনজিডির ইকোনমি ৫.৫৬।

জাসপ্রিত বুমরাহ (ভারত)
ম্যাচ : ১৩, উইকেট :২২, গড় : ১৬.৬৩।

২০১৮ সালে ভারতের পেসার জাসপ্রিত বুমরাহ ওয়ানডেতে ছিলেন দারুণ ফর্মে। বোলারদের র‍্যাঙ্কিংয়ে রয়েছেন শীর্ষস্থানে। ছিলেন বেশ হিসেবি বোলার। ৩.৬২ ইকোনমি সাক্ষ্য দিচ্ছে সেটির। ২০১৮ সালে ভারতের সর্বোচ্চ উইকেট শিকার করা পেসারও তিনি।


আরো পড়ুন :  টি-টোয়েন্টিতে বছরজুড়ে উত্থান-পতন


 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Related Articles

বয়স নিয়ে সমালোচনাকারীদের নিয়ে ভাবেনই না রশিদ!

মিসবাহর দলে ব্রাত্য মালিক-হাফিজ!

র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থান ধরে রাখলেন দুই অস্ট্রেলিয়ান

একাধিক রেকর্ড দিয়ে অ্যাশেজ শেষ করলেন স্মিথ

শেষ দুই ম্যাচের বাংলাদেশ দলে একাধিক চমক