আঙ্গুলে ব্যথা নিয়েই জিম্বাবুয়ে সিরিজেও খেলবেন মাশরাফি

0
1586

অধিনায়ক হিসেবে দলের প্রতি তার দায়িত্বটা অন্যদের থেকে একটু বেশিই। তাছাড়া ইনজুরির কারণে মাঠের বাইরে সাকিব-তামিম। সেজন্য নিজে ঝুঁকি নিতেও পরোয়া করছেন না মাশরাফি বিন মর্তুজা। আঙ্গুলের ব্যথা নিয়েই জিম্বাবুয়ে সিরিজে খেলবেন তিনি।

আঙ্গুলে ব্যথা নিয়েই খেলবেন মাশরাফি
এশিয়া কাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে সুপারম্যানের মত ক্যাচ নিতে গিয়েই আঙ্গুলে চোটের উৎপত্তি।

মাশরাফির এই সাম্প্রতিকতম চোটের সূত্রপাত এশিয়া কাপে। বাঁচা-মরার লড়াইয়ে পাকিস্তানকে হারিয়ে দিয়ে প্রতিযোগিতার ফাইনালে ওঠার ম্যাচে শোয়েব মালিককে ফেরানো অসাধারণ ক্যাচটা নেওয়ার সময় এই চোট পেয়েছিলেন মাশরাফি। পেসার রুবেল হোসেনের বলে শর্ট মিড উইকেটে অবিশ্বাস্য ক্ষিপ্রতায় শূন্যে ভেসে ক্যাচ নিয়েছিলেন তিনি।

সুপারম্যানের মত ক্যাচটি নেয়ার সাথে সাথেই উঠে দাঁড়িয়েছিলেন নড়াইল এক্সপেস। বাঁ হাতে বলটি উঁচিয়ে ধরে মূর্তির মত খানিকক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে করেছিলেন এক দর্শনীয় উদযাপন। কিন্তু এরপরই আঙ্গুলে প্রচন্ড ব্যথা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছিল তাকে। পরে আঙ্গুলে ব্যান্ডেজ বেঁধে আবারও মাঠে ফিরেছিলেন তিনি। বলও করেছিলেন, ফিল্ডিংয়েও ঢেলে দিয়েছিলেন নিজের শতভাগ।

Advertisment

কিন্তু এরপর থেকে আঙ্গুলটা আর পুরোপুরি ঠিক হয়নি। আঙ্গুলে ব্যথা নিয়েই তিনি খেলেছিলেন ভারতের বিপক্ষে এশিয়া কাপের ফাইনাল ম্যাচেও। কেন ঝুঁকি নিচ্ছেন, যদি আঙ্গুলে গুরুতর কোনো চির ধরে থাকে, সেই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেছিলেন, “সাকিব ভাঙা আঙুল নিয়ে এতগুলো ম্যাচ খেলে গেল, আমি একটা ফাইনাল পারব না?”

কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, ওই ‘একটা ফাইনাল’ খেলেই ক্ষান্ত দিচ্ছেন না বাংলাদেশ দলের কান্ডারী। এশিয়া কাপ ফাইনালের পর তিন সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও আঙ্গুলের ব্যথাটা আছে সেই আগের মতোই। চিকিৎসাও করা যাচ্ছে না। এমন অবস্থাতে ব্যথা নিয়েই প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন তিনি। এবং তিনি মানসিকভাবে প্রস্তুত এই ব্যথা নিয়েই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিনটি ম্যাচেই খেলার জন্য।

এশিয়া কাপের পর মাশরাফি প্রথম বল হাতে তুলে নেন গত বুধবার। সেটি জিম্বাবুয়ে সিরিজের প্রস্তুতি হিসেবেই। সেদিন মিরপুর স্টেডিয়ামে অনুশীলনে তিন ওভার বল করেছিলেন তিনি। এবং পরদিন বৃহস্পতিবার করেন আরও চার ওভার। এসময় তিনি সামনে রেখেছিলেন বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ, স্পিন কোচ সুনীল যোশি ও ফিজিও তিহান চন্দ্রমোহনের সামনে গতকাল বোলিং করেছেন নড়াইল এক্সপ্রেসকে।

আঙ্গুলের ব্যথার ব্যাপারে তার কাছে জানতে চাইলে বিষয়টিকে এক কথায় উড়িয়েই দেন তিনি। বলেন, “ব্যথা আছে, সিরিজের পর দেখা যাবে।” অর্থাৎ জিম্বাবুয়ে সিরিজের আগ পর্যন্ত বিনা চিকিৎসাতেই থাকবেন তিনি, নেমে পড়বেন প্রতিযোগিতামূলক আন্তর্জাতিক ম্যাচেও। সিরিজ শেষে ব্যাংককে গিয়ে আঙ্গুলের চিকিৎসা করানোর পরিকল্পনা রয়েছে তার।

২৬ অক্টোবর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শেষ ওয়ানডের পর মাশরাফি আবারও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরবেন ৯ ডিসেম্বর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে দিয়ে। অর্থাৎ মাঝে মাস দেড়েকের ছুটি পাচ্ছেন তিনি। এই দেড় মাসকেই তাই বেছে নিয়েছেন আঙ্গুলের ব্যথা উপশমের উপযুক্ত সময় হিসেবে।