Score

ইনজুরিতে ১৪-১৫ জন ক্রিকেটার!

একটা সময় প্রত্যন্ত এলাকাগুলোতে বিভিন্ন রোগবালাই আসতো, যা একইসাথে আক্রমণ করত পুরো এলাকাবাসীকে। চিকিৎসা বিজ্ঞানের যথার্থ ব্যবহার গ্রামাঞ্চলের সেসব দুর্যোগ দূর করেছে। তবে ঠিক একই রূপ ধরে যেন এবার বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে হানা দিয়েছে ‘ইনজুরি’। খেলোয়াড়দের ফিটনেসে ব্যাঘাত ঘটানো বিভিন্ন ত্রুটি নিয়ে আবির্ভূত হওয়া এই একটি শব্দ দেশের ক্রিকেট পাড়ায় ফেলেছে দুশ্চিন্তার ভাঁজ।

ফের ভারতই হাতে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব

এবারই প্রথম ‘পঞ্চপাণ্ডব’ খ্যাত দেশের শীর্ষ পাঁচ ক্রিকেটার একইসাথে পড়েছেন ইনজুরিতে। সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের ইনজুরি আবার বেশ গুরুতর। ফলে তামিম মিস করবেন জিম্বাবুয়ে সিরিজ, আর সাকিব মিস করবেন জিম্বাবুয়ে ও উইন্ডিজ সিরিজ দুটিই। মাশরাফি বিন মুর্তজা, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মুশফিকুর রহিমের চোট এত গুরুতর না হলেও তাদের ইনজুরিও ভাবাচ্ছে বোর্ডকে। এমন সময় দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে দলের বাকি ক্রিকেটারদের মধ্যেও ইনজুরি সমস্যা হানা দেওয়ায়।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খানের ভাষ্যমতে, একইসাথে জাতীয় দলের মোট ১৩-১৪ জন ক্রিকেটার ইনজুরিতে রয়েছেন। দুয়ারে দাঁড়িয়ে থাকা জিম্বাবুয়ে সিরিজের আগে এমন অবস্থা বিসিবিকে ফেলেছে ঘোর দুশ্চিন্তায়। ইনজুরি আক্রান্ত জাতীয় দলের ক্রিকেটারের সংখ্যা আসলেই ঠিক কত, সেটি নিশ্চিতভাবে জানা সম্ভব না হলেও বিভিন্ন ক্রিকেটারের চোট পাওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া গেছে, যা তৈরি করছে আগামী সিরিজগুলোতে দলের ভালো পারফরম্যান্স দেখতে পাওয়ার শঙ্কাও।

Also Read - ফিজিও সর্বোচ্চ চেষ্টাই করেছেন : নিজামউদ্দিন

আকরামের ভাষ্য অনুযায়ী,

‘এখন ১৪-১৫ জন ক্রিকেটার ইনজুরিতে আছে! এটা আমাদের জন্য অনেক সিরিয়াস একটা ব্যাপার। কারণ আমাদের অপশন অনেক কম। এখন থেকে প্রত্যেকটা পদক্ষেপ আমাদের অনেক গুরুত্বের সাথে নিতে হবে।’

ক্রিকেটার মোহাম্মদ মিঠুন ভুগছেন কুঁচকির ইনজুরিতে। টানা খেলার ধকল সামলানোর আগেই ক্লান্তি ভর করেছে পেসার মুস্তাফিজুর রহমানের উপর। মেহেদী হাসান মিরাজের পুরনো কাধের ব্যথা নতুন করে দেখা দিয়েছে। আর মুমিনুল হক ভুগছেন আঙুলের ব্যথায়। চোট রয়েছে রুবেল হোসেনেরও।

এমন পরিস্থিতিতে দল গঠন নিয়েই দেখা দিতে পারে বিপত্তি। যদিও আকরাম আশাবাদী, সাকিব ও তামিম ছাড়া বাকিদের সুস্থভাবে পাওয়া যাবে জিম্বাবুয়ে সিরিজেই। তিনি আরও বলেন,

‘কোন খেলোয়াড়কে খেলানো যাবে, কাকে খেলানো যাবে না এসব নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে। আবার এর মধ্যে জিততেও হবে। তরুণদের সুযোগ দেয়া হবে। ওরা যদি ভালো খেলে তাহলে ভালো। তাদেরকে নিয়েও পরবর্তীতে রিস্ক নেয়া যাবে।’

তবে দলের এমন বিপদে ফিজিও থিহান চন্দ্রমোহন রয়েছেন ছুটিতে। খেলোয়াড়দের চোট সারিয়ে নেওয়া যার প্রধান কাজ, তার এমন অসময়ের ছুটি নিয়েও হচ্ছে আলোচনা-সমালোচনা।

আরও পড়ুন: অস্ত্রোপচার নাও লাগতে পারে সাকিবের!

Related Articles

“গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় ছাড়াই জিতেছি, এটি ইতিবাচক”

“ওকে নিয়ে আমরা চিন্তিত নই”

আকরাম খান বাজাবেন আলোচিত সেই ঘণ্টা

সাকিবের অনুমতি চাওয়ায় অবাক হয়েছে বোর্ড

জিম্বাবুয়ে সিরিজে টাইগারদের ম্যানেজার আকরাম খান