Scores

“মার খাওয়া থেকেই তো শিখব”

এক বছরের একটু বেশি সময় ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন মোহাম্মদ  সাইফউদ্দিন। এ সময়ে অনেক তিক্ত-মিষ্ট অভিজ্ঞতা হয়েছে সাইফউদ্দিনের। হোঁচট খেয়েছেন। দল থেকে ছিটকে পড়েছেন। আবার প্রত্যবর্তন ঘটিয়েছেন দারুণভাবে। সাইফউদ্দিন মনে করেন এগুলো ক্রিকেটেরই অংশ। 

ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে সাইফউদ্দিন।
ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে সাইফউদ্দিন।

চোট কিংবা অফফর্মের কারনে দল থেকে ছিটকে যাওয়াকে মাথায় রেখেই খেলেন বলে জানান সাইফউদ্দিন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে শেষে তিনি বলেন, “আসলে ক্রিকেট খেলাটা এমনই। বাইরে থাকব, আবার ফিরব। ভালো খেলব। ইনজুরির কারণে বা অফফর্মের কারণে বাইরে চলে যাব। আবার ফিরে নিজেকে মেলে ধরবো। এসব মাথায় নিয়েই খেলতে হয়।”

গত অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ডেভিড মিলার তার ওভারে হাঁকিয়েছিলেন পাঁচ ছক্কা। সেই দুঃস্মৃতি এখনো ভুলেননি সাইফউদ্দিন। তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ডেথ ওভারে দেখা গেল অন্য রূপের সাইফউদ্দিনকে। শেষ পাঁচ ওভারে দুই ওভার করা সাইফউদ্দিন ১৩ রান দিয়ে শিকার করেছেন এক উইকেট।

Also Read - পাকিস্তানের কাছে পাত্তাই পেলো না অস্ট্রেলিয়া


জানুয়ারির ত্রিদেশীয় সিরিজের পর বাদ পড়েছিলেন সাইফউদ্দিন। জিম্বাবুয়ে সিরিজ দিয়ে দলে ফিরলেন। ফিরেছেন দুর্দান্ত পারফর্ম করেই। প্রথম ম্যাচে ব্যাট হাতে অর্ধশতকের পর দ্বিতীয় ম্যাচে তিন উইকেট শিকার করে হয়েছেন ম্যাচসেরা। বাদ পড়লেও হাল ছাড়েননি তিনি। অনুপ্রেরণা নিয়েছেন মায়ের কথা থেকে।

"মার খাওয়া থেকেই তো শিখব"
সাইফউদ্দিনের উইকেট উদযাপন।

সাইফউদ্দিন বলেন, “আমি আসলে কিছু সময় সাফল্য পেতে গেলে একটু হোঁচট খাই। আমার মা বলতেন একটা ছেলে হাঁটা শিখতে গেলে বারবার হোঁচট খায়। তাই বলে কি তার হাঁটা বন্ধ হয়ে যায়? একইরকম আমিও মার খাব। ওখান থেকেই তো শিখব।”  

ডেথ ওভারে বোলিংয়ের অভিজ্ঞতা বয়সভিত্তিক ক্রিকেট থেকেই বলে জানান তিনি। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শুরুর দিকে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি বলে মনে করেন তিনি। সাইফউদ্দিন বলেন, “আমি ছোটবেলা যখন অনূর্ধ-১৫, ১৭ খেলতাম। যখন মিরাজ অধিনায়ক ছিল। তখন থেকেই ডেথ ওভারের অভিজ্ঞতা। হয়তো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম কয়েকটা ম্যাচ ওইরকমভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারিনি। 

ডেথ ওভারে সাইফউদ্দিনের সঙ্গে অপর প্রান্তে বোলিং  করেছেন মুস্তাফিজুর রহমান। তিনিও ছিলেন অসাধারণ। তাই তো শেষ পাঁচ ওভারে বাউন্ডারিই পায়নি জিম্বাবুয়ে। মুস্তাফিজকে সাপোর্ট দেওয়ার চেষ্টা করেছেন বলে জানিয়েছেন সাইফউদ্দিন। তিনি বলেন, “আমি ঐ  কাজটাই করেছি যাতে মোস্তাাফিজকে সাপোর্ট দেয়া যায়। ওভারে ৫, ৭ রান দিতে পারি এমন লক্ষ্য ছিল।” 

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন


Related Articles

প্রথম শতকের দুই দশক পূর্তি আজ

পরিসংখ্যানে বাংলাদেশ-উইন্ডিজ ওয়ানডে লড়াই

কায়েসের বিদায়ে লাঞ্চে বাংলাদেশ

টেস্টে র‍্যাংকিংয়ে বড় ধাক্কা খেল বাংলাদেশ

টেস্টের পারফরম্যান্সে পুরোপুরি খুশি নন পাপন